ফেইসবুক যদি বিশ্ববিদ্যালয় হত তাহলে এমন আবেদন নিশ্চই অযৌক্তিক হত না (রম্য লেখা )

বরাবর

মার্কজুকার বার্গ

ফেইসবুক বিশ্ববিদ্যালয়।

বিষয়: ফেইসবুক বিশ্ববিদ্যালয় বাংলাদেশ ক্যম্পাসের শারীররিক এবং মানসিক উন্নয়নের জন্য আবেদন।

 

জনাব,

আপনি জানিয়া খুশি হইবেন যে আমরা আপনার বিশ্ববিদ্যালয়ের নিয়মিত ছাত্র-ছাত্রী। আপনার বহুল জননন্দিত এবং নিন্দিত এই বিশ্ববিদ্যালয়ের বহু ছাত্র-ছাত্রীর সম্ভাবনাময় প্রতিভা আজ মৃতু্র প্রহর গুনিতেছে ।কেননা অতীতে আমরা দেখিয়াছি বহু প্রেমিক-প্রেমিকারা বিশাল কাগজে প্রেম পএ লিখিয়া প্রেমিকার নিকট অনেক নির্মাধীন পদ্বা সেতু পেছনে ফেলিয়া আবুল হোসেনের কথা না ভাবিয়াই প্রেম পত্রখানা পৌছাইয়া দিত। কিন্তু আজকাল সেই সব প্রতিভাবান ছাত্র-ছাত্রীরা আর প্রেম পত্র পাঠায় না ।কম্পিউটারের কী-বোর্ডের উপর অকঠ্য নির্যাতন করিয়া অথবা মোবাইলের কী গুলোকে অসহ্য যন্ত্রনা দিয়া বাংলা, ইংরেজী, হিন্দি ভাষার মিস্রনে ম্যসেজ নামক চিরকুট পাঠায় ।তাই বাংলাদেশের মত গরীব দেশে এই প্রেমপত্র শিল্প আজ চরম হুমকির মুখে। একই ক্যম্পাসের কুদ্দুস মিয়া নামক এক ছাত্র কিছুদিন আগে বিবাহ করিয়া সুন্দরী স্ত্রীর ছবি তাহার ওয়াল এ আপলোড করিয়াছিল। দুখে:র বিষয় আপলোড করার ৫ মিনিট পরই প্রেম পাগইল্যা নামক এক বকাটে ইউসার তাহার সুন্দরী স্ত্রীর ছবি চুরি কইরা নিয়া যায়। বেচারা কুদ্দুস স্ত্রীর ছবি হারাইয়া দিশেহারা হইয়া হাইকোর্টে মামালা করিলেও কোন সুফল পায় নাই। আরেকজন নতুন মেধাবী ছাত্র কিছুদিন আগে তাহার ছাত্রত্ব অস্থায়ী ভাবে হারাইয়াছে। গোপন সূত্রে জানা যায়, নতুন ছাত্র হিসাবে সে সিনিয়র জুনিয়র সবার সাথে বন্ধুত্ব সম্পর্ক গড়িয়া তোলার জন্য অসংখ রিকোয়েস্ট পাঠায়। প্রক্টরিয়াল কমিটি বিষয়টি জানিতে পারিয়া তাহাকে ২ দিনের জন্য বহিস্কারের সিদ্ধান্ত নেয় । নতুন ছাত্র হিসাবে এই অবস্থায় এসে সে মানসিক ভাবে অসুস্থ হয়ে যায় এবং বর্তমানে টুইটার হাসপাতালে চিকিতসাধীন আছে। এভাবে যদি আরো কিছু দিন চলতে থাকে তাহলে অচিরেই হয়ত এই ফেইসবুক বিশ্ববিদ্যালয়ের অনেক মেধাবী ছাত্র ফেইক আইডি নামক অবৈধ অস্ত্র হাতে নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যম্পাসে ঘুরা-ফেরা করবে। আর অবৈধ লাইক এবং কমেন্টের মাধ্যমে বিশ্ববিদ্যালয়ের শান্তি-শৃঙ্খলাকে নষ্ট করিয়া থাকিবে।

 

অত এব বিনীত নিবেদন এই যে যত দ্রুত সম্ভব আপনি আপনার উরবর মস্তিস্ক ব্যবহার করিয়া এই সকল সমস্যার যুগোপযোগী সমাধান প্রদান করিবেন।

 

নিবেদক

আপনার বিশ্বস্ত অবিশ্বস্ত ছাত্র-ছাত্রী বৃন্দ।

ফেইসবুক বিশ্ববিদ্যালয়, বাংলাদেশ ক্যম্পাস।

One thought on “ফেইসবুক যদি বিশ্ববিদ্যালয় হত তাহলে এমন আবেদন নিশ্চই অযৌক্তিক হত না (রম্য লেখা )

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  পরিবর্তন )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  পরিবর্তন )

Connecting to %s