বাংলাদেশ ছাত্রলীগ নিয়ে কিছু কথা, আর দুই-একটা অনুরোধ ।

কবি সুকান্ত ভট্টাচার্য-এর কবিতার একটি বিশেষ লাইন পড়েছিলাম : ”সাবাস বাংলাদেশ এ পৃথিবী অবাক তাকিয়ে রয়, জ্বলে পুরে মরে ছার-খার, তবু মাথা নোয়াবার নয়”

ছাত্রলীগের বেলায় যদি এই লাইনটি বলি তাহলে হয়ত এভাবেই বলতে হবে, সাবাস ছাত্রলীগ এ বাংলাদেশ অবাক তাকিয়ে রয় জ্বালিয়ে পুরিয়ে কর ছার-খার, তবু তোমাদের কোন ভয় নয় ।

এদেশের মানুষ ৫২র ভাষা আন্দোলন, ৬২র শিক্ষা আন্দোলন, ৬৯ এর গণ অভুত্থানে দেখেছে ছাত্র সমাজের ভুমিকা । দেশের জন্য জীবন দিতে যারা কুণ্ঠাবোধ করেনি । তারা করেছিল রাজনীতি যে রাজনীতি ছিল এ দেশের সর্ব শ্রেণীর মানুষের কল্যণের জন্য ।Image যে রাজনীতির উদ্দেশ্য ছিল “আমার দেশটা যেন হয় একটা স্বাধীন দেশ, আমি আমর পরবর্তী প্রজন্ম যেন কথা বলতে পারে আমার মায়ের ভাষায়, আমার ভাই-বোন যেন হয়  শিক্ষা-দীক্ষায় উন্নত, আমর বাংলাদেশ যেন পরিণত হয় একটা স্বাধীন সমৃদ্ধ দেশে” ।  হ্যা তাদের সেই স্বপ্ন হয়ত অনেকটা সত্যিও হয়েছে । তাদের ধৱাবাহিকতায় আজ রাজনীতি করেন বলে যারা দাবি করেন, যারা বক্তৃতার মঞ্চে কথায় কথায় সেই সব ছাত্রদের (৫২,৬২র আন্দালনকারী ছাত্রদের) উদাহরণ দেয়, তারা আজ কি করছেন ? সেই সব আন্দোলনকারী ছাত্ররা  টেন্ডারবাজী, চাদাবাজি, মেধাবী সাধারণ ছাত্রদের পিঠিয়ে হাসপাতালে পাঠানো, অপর গ্রুপের বন্ধুটিকে সবার সামনে সাপের মত পিটিয়ে হত্যা করা, নিজেদের সর্বোচ্চ ক্ষমতার অপব্যবহার করে ধর্ষণের মত নোংরা কাজ করা – এসব কাজ কখনো করেছেন বলে তো শুনিনি, ইতিহাসও ত বলে না, আর আমরা ত তাদের ব্যপারে এসব কল্পনাও করতে পারি না ।

প্রতিদিনের খবরের কাগজ খুললে ছাত্রলীগের যেসব কর্মকান্ড আমাদের চোখে পড়ে তা সত্যি দু:খজনক । কুয়েটের ছাত্রলীগ কর্মীরা সাধারণ ছাত্রদের যেভাবে মারপিট করল, তা দেখলে কার না দুঃখ হবে । সাতক্ষীরার জেলা ছাত্রলীগ সভাপতি জুয়েল, সাধারণ সম্পাদক পলাশ যে নোংরা কাজটাই না করল, তা দেখে কোন বিবেকবান মানুষ আশা করবেন যে, হ্যা এরা সমাজের জন্য ভাল কিছু করবে । শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয়ের কতিপয় ছাত্ররা উপচার্যের বিরুদ্ধে ইউ জি সি চেয়ারম্যন  এর কাছে যে স্মারকলিপি  দিয়েছিল আর তা পড়ে ইউ জি সি চেয়ারম্যন  উপচার্যকে উদ্দেশ্য করে যে সব কথা বললেন তা ত কারো কাম্য ছিল না । আজ যেখানে আরব বিশ্বের তরুণ-তরূণীরা নিজেদের দাবি আদায়ের জন্য, গণতণ্ত্র প্রতিষ্টার জন্য, মানবাধিকার কায়েমের জন্য আন্দোলন করছে । আর আমাদের দেশে তাদের মত তরুণরা, ছাত্ররা কত নিন্দনীয় কাজই না করে চলেছি , আমাদেরত লজ্জিত হওয়া উচিত ।

আপনাদের কাছে প্রশ্ন- আর কত বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়তে আসা ছাত্রদের লাশ হয়ে ফিরে যেতে হবে মা-বাবার কাছে? আর কত বোন লাঞ্ছিত হবে? আর কত মানুষ আপনাদের ভয়ে দিন কাটাবে? তাই ছাত্রলীগ নেতা-কর্মীদের অনুরোধ করব আপনারা সুষ্টু, সুন্দর আর পরিচ্ছন্ন রাজনীতি করুন । নিজেদের স্বার্থসংশ্লিষ্ট অন্যায় কাজগুলো পরিহার করে দেশ- জাতির উন্নয়নে কাজ করুন । সমাজের ভাল আর উন্নয়নমুলক কাজের মাধ্যমে নিজেদের সংগঠনের একটি মডেল দাড় করান । তাহলে নতুন প্রজন্মের যারা রাজনীতি শব্দটা শুনলে মুখ ফিরিয়ে নেয় তারাও শিখতে পারবে আপনাদের কাছ থেকে আদর্শের রাজনীতি । দিন বদলের এই দিনে আসুন সবাই বদলে দেই নিজেদের, প্রতিদিন একটা করে হলেও দেশের জন্য, নিজের জন্য ভাল কাজ করি- মাস, বছর, কাল শেষে তা ই পরিনত হবে অনেক ভাল কাজে ।

( বি: দ্র: লেখাটি প্রথম আলোর বদলে যাও বদলে দাও ব্লগে প্রকাশিত হয়েছিল ১০ জানুয়ারী ,২০১২ )

Advertisements

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out /  পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  পরিবর্তন )

Connecting to %s